As-Sunnah Trust

প্রশ্নোত্তর

ক্যাটাগরি

প্রশ্নোত্তর 5734

প্রশ্ন

আসসালামু আলাইকুম। একটা শরিয়াহ বিষয়ে সমাধান নেয়ার জন্য এই লেখা লিখছি! আমার ৪ টা বোন আছে।, আমি সবার ছোট, আমার বয়স ৩৪, আমি পেশায় একজন সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার। আমার একটা বোন আছেন যিনি আমাদের পুরো পরিবারের ভিতর ফিতনা সৃষ্টি করেন, একজনের কথা আর এক জনের কাছে বলে। উনি মুখে যা বলেন আর মনে যা পুষে রাখেন তা সম্পুর্ন আলাদা। এই সমস্যায় আমরা প্রায় গত দুই যুগ ধরে ভুগছি। এখন আমরা অতিষ্ট হয়ে গেছি। আমি আমার অবস্থান থেকে দীন মেনে চলার চেষ্টা করি। আমি পবিত্র কুরআনের তাফসিরসহ পড়েছি, সাথে বুখারি মুসলিম এর ওভারভিউও দিয়েছি। আমি নিয়মিত আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গির রাহিমাহুল্লা স্যার, আহমাদুল্লাহ সাহেব, আজহারি সাহেব ও অন্যান্য আলিমদের জীবন ঘনিষ্ঠ ভিডিও দেখার চেষ্টা করি। যেহেতু আমার আপন বোনের সাথে সম্পর্ক রক্ষা আমার জন্য ফরজ, কিন্তু উনি পরিবার স্বীকৃত চোগলখোর ও মুনাফেক যে আমাদের পুরা পরিবারের ভিতর ফিতনা সৃষ্টি করে রেখেছেন। এমতাবস্থায়, ফিতনা এড়ানোর জন্য আমি উনার সাথে সম্পর্কের একটা ফয়সালা করতে চাই। যদি আমি উনার সাথে স্থায়ীভাবে যোগাযোগ বন্ধ করি তত দিন পর্যন্ত যত দিন না উনি এই বদ অভ্যাস গুলা পরিহার করেন, তাতে কি আমার ফরজের খেলাফ হবে কি না? যদি ফরজের খেলাফ হয়, তাহলে আমি ঠিক সর্বনিম্ন কতটুকু সম্পর্ক বজায় রাখলে আমার ফরজ আদায় হয়ে যাবে এবং আমি ফিতনা থেকেও বেঁচে থাকতে পারব, দয়া করে একটু জানাবেন। আমি আমার সাধ্য মত তাদেরকে আর্থিক ও সামাজিকভাবে সাহায্য করে আসছি, তাদের আনুগত্য পাওয়ার জন্য অনেক কিছু করেছি, কিন্তু কোন কিছুতেই কোন লাভ হচ্ছে না। দয়া করে আমাকে একটু সাহায্য করবেন।

উত্তর

ওয়া আলাইকুমুস সালাম। স্থায়ীভাবে সম্পর্ক ছিন্ন করা যাবে না। সম্পর্ক সীমিত করতে হবে। তার অনিষ্ট থেকে বেঁচে থাকার জন্য যতটুকু প্রয়োজন দূরত্বে থাকবেন। তার প্রাপ্য হক থেকে সে যেন বঞ্চিত না হয় সেটা খেয়াল করবেন। সে অন্যায় করেছে, কিন্তু তার জবাবে যেন আপনি অন্যায় না করে ফেলেন, সে দিকে লক্ষ্য রাখবেন।