As-Sunnah Trust

প্রশ্নোত্তর

ক্যাটাগরি

প্রশ্নোত্তর 5213

প্রশ্ন

আসসালামু আলাইকুম, আমায় সাধারণ মধ্যবিত্ত পরিবাবারে মুসলিম সন্তান।চেষ্টা করিছি নিজেকে পরিপূর্ণ প্র্যাক্টীসিং মুসুলিম হিসেবে গড়ে তুলতে। এর মধ্যে সব চেয়ে বড় বাধা হয়ে দাড়িয়েছে আমার বিয়ের ব্যাপারটি। আমি এক মেয়েকে পছন্দ করতাম।বিষয়টি অইভাবে তখন গুরুত্ব দেয় নি। সবাই করে আমি করছি এ এমন বিশাল কিছু না। কিন্তু যখন দ্বীনের ব্যাপারে সচেতন হই। তখন ই সিদ্ধান্ত নিয়েছি বিয়ের। কিন্তু মেয়ের পরিবার চাইলে ও আমার পরিবার পক্ষ থেকে এখন বিয়ে ব্যাপারে কথা বলতে রাজি নয়। তাদের উক্তি হল, আমি এখন শহরে ভাড়া বাসায় থাকি, টাকা পয়সা কামিয়ে নিজের ঘর-বাড়ি করার পর তারপর তারা আমার পছন্দের মেয়ের পরিবারে সাথে কথা বলবে। আমি বর্তমানে আয় করছি । মাসে ৫০-৬০ হাজারের আয় হয় আল্লাহর রহমতে। তবে এই টাকা দিয়ে শহরের বাড়িতে থাকা খাওয়ার খরচ ভালই চলছে আলহামদুলিল্লাহ। এখন আমার বয়স ২২। আমি চেয়েছি পরিবার কথা বলে আমাদের আকদ করে দিক। তারপর ২-৩ বছর সময় নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে বউ ঘরে নিয়ে আসব। কিন্তু আমার পরিবার কে অনেক বুজানোর পর ও তারা একই কথা বলছে। তারা আমার পছন্দ অবজ্ঞা করবে না কিন্তু আগে আমার থেক ঘর-বাড়ি দিয়ে প্রতিষ্ঠিত হতে হবে। এখন এই প্রতিষ্ঠিত হতে যে সময় টা লাগবে সেটা কি আমি অ ন্যায় সম্পর্ক থাকব কিভাবে। সেটা পরিবার কে বুজাতে ই পারচি না।উল্লেখ্য যে, যে মেয়ে কে বিয়ে করতে দুই জন ই দ্বিনের পথে পরিপূর্ণ রূপে ফিরে আস্তে চাই। আর এর জন্য বিয়ে অনেক বড় একটা ভূমিকা রাখবে বলে আমি মনে করি। আমার শক্তি সামর্থ বিয়ের জন্য আল্লাহর রহমতে যথেষ্ট। কিন্তু স্মাজিক প্রেক্ষাপটে পারিবারিক চাহিদা পূরণ দাবি-দাওয়া আমাকে চরম বিভ্রান্তিতে ফেলে দিয়েছে।এখন আমার কি করা উচিত। কিভাবে আমার পরিবার কে রাজি করাতে পারি একটি ইসলামিক সুন্দর সমাধান চাই। আমি খুব দ্রুত আমার এই সমস্যার জন্য উত্তর চাই আপানাদের কাছে। আমার জীবন কাজ-কর্ম সবকিছু একটা ধোয়াশা র মধ্যে পড়ে গেছে। বুঝে উঠতে পারছি না কি করব। আমি তো বিয়ে করতে চায়, অন্যায় কিছু তো নয়। তাহলে পরিবার কেন তা মেনে নিতে চাই না। বিয়ের করার মতো আর্থিক সামর্থ তো আছে আমার।আপনাদের কাছে আকুল আবেদন আমাকে একটি উপযুক্ত সমাধান দিন। আল্লাহ কাছে প্রতিনিয়ত দোয়া করছি যে আমাকে সঠিক পথ দেখান।

উত্তর

ওয়া আলাইকুমুস সালাম। আপনি বিয়ে করে ফেলুন। এবং ধীরে ধীরে বাড়ি করার চেষ্ট করুন। আপনার সিদ্ধান্ত অভিভাবকদের জানিয়ে দিন, এবং তাদেরকে আরো বুঝিয়ে রাজি করার চেষ্টা করুন। যদি তারা মেনে নেয় ভালো, না মানলে আপনি আপনার সিদ্ধান্তে অটল থেকে বিয়ে করে ফেলুন।আল্লাহ তায়ালা কুরআনে বলেছেন,وَمَنْ يَتَّقِ اللَّهَ يَجْعَلْ لَهُ مَخْرَجًا (2) وَيَرْزُقْهُ مِنْ حَيْثُ لَا يَحْتَسِبُ وَمَنْ يَتَوَكَّلْ عَلَى اللَّهِ فَهُوَ حَسْبُهُ যে আল্লাহকে ভয় করবে, আল্লাহ তার একটা রাস্তা বের করে দিবেন। এমন উৎস থেকে রিযিক দান করবেন যা কখানো সে কল্পনাও করে নি। যে আল্লাহর উপর ভরসা করে আল্লাহ তার জন্য যথেষ্ট। সূরা তলাক, আয়াত ২-৩। সুতরাং আপনি আল্লাহর উপর ভরসে করে বিয়ে করে পাপ থেকে সম্পূর্ণ রূপে ফিরে আসুন।