As-Sunnah Trust

প্রশ্নোত্তর

ক্যাটাগরি

প্রশ্নোত্তর 374

প্রশ্ন

স্যার, আমি আপনের রাহে বেলায়েত, এহায়েয়াউস শুনান বইদুটি পড়েছি এবং youtube এ আপনের সকল presentation দেখেছি। আমার জীবন পরিবর্ত ন হয়েছে, আমের দুইটি প্রশ্ন আছে, ১- একাকি ফরজ নামাজ পড়ার সময় দুআ মাসুরা পড়ার পর আল্লাহর কাছে কিছু চাওয়া যাবে কি? ২- একাকী ফরজ নামাজ পড়ার পর হাত তুলে মোনাজাত করা যাবে কী? ৩-তাহাজ্জত নামাজ এ সালাম ফিরানোর পর হাত তুলে মোনাজাত করা যাবে কী? ৪- দুনিয়ার কোন সমস্যার জন্য আল্লাহর কাছে কীভাবে চাইবো? ফরজ নামাজে সালাম ফিরানোর আগে নাকি তাহাজ্জুদ নামাজে?

উত্তর

ফরজ সালাত জামাতের সাথে পড়া একান্ত জরুরী। বিনাওজওে একাকী ফরজ সালাত আদায় করা খুবই অনুচিৎ ও গুনাহের কাজ। ফরজ সালাতে শেষ বৈঠকে দরুদ শরীফের পর আপনি একাধিক দুআ মাসূরা পাঠ করতে পারেন। মনে রাখবেন হাদীসে কিংবা কুরআনে বর্ণিত দুআই হলো দুআ মাসূরা। আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী দুআ মাসূরা আপনি পাঠ করবেন। তবে নিজের পক্ষ থেকে বানানো কোন দুআ পাঠ করবেন না। ফরজ কিংবা সুন্নাত যে কোন সালাতের শেষে এবং অন্যান্য সময় হাত তুলে মুনাজাত করা যায়। হাত তোলা মুনাজাতের একটা আদবও বটে। তবে রাসূলুল্লাহ সা. যখন হাত তুলেছেন তখন হাত তোলা আর যখন তুলেন নি তখন না তোলায় সুন্নাত । আর নামাযের পর রাসূলুল্লাহ সা. হাত না তুলে বিভিন্ন দুআ ও জিকির পাঠ করতেন। দুনিয়ার প্রয়োজনের জন্য আপনি কুরআন ও হাদীসে বর্ণিত যে কোন দুআ ফরজ কিংবা সুন্নাত সালাতে দরুদ শরীফের পর পড়তে পারেন। সুন্নাত সালাতের মধ্যে ও সিজদাতেও এই সব দুআ পড়তে পারেন। আরবীতে দুআ না জানা থাকলে অনুচিত হলেও সুন্নাত সালাতের মধ্যে ও সিজদাতে মাসনূন দুআর অর্থ নিজ ভাষায় পাঠ করতে পারেন আর দ্রুত মাসনুন দুআ মুখস্ত করে নেবেন। তবে ফরজ সালাতের মধ্যে দুআ মাসূরা ব্যতিত কোন দুআ পাঠ করবেন না। বিস্তারিত জানতে দেখুন, রাহে বেলায়াত বইটি পড়ন।