(১) “কেননা মনুষ্যপুত্র আপন দূতগণের (angels) সহিত আপন পিতার প্রতাপে আসিবেন, আর তখন প্রত্যেক ব্যক্তিকে তাহার ক্রিয়ানুসারে প্রতিফল দিবেন। আমি তোমাদিগকে সত্য কহিতেছি, যাহারা এখানে দাঁড়াইয়া রহিয়াছে, তাহাদের মধ্যে এমন কয়েক জন আছে, যাহারা কোন মতে মৃত্যুর আস্বাদ পাইবে না, যে পর্যন্ত মনুষ্যপুত্রকে আপনার রাজ্যে আসিতে না দেখিবে।”1মথি ১৬/২৭-২৮।

(২) “আমরা প্রভুর বাক্য দ্বারা তোমাদিগকে ইহা বলিতেছি যে, আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা প্রভুর আগমন পর্যন্ত অবশিষ্ট থাকিব, আমরা কোন ক্রমেই সেই নিদ্রাগত লোকদের অগ্রগামী হইব না। কারণ প্রভু স্বয়ং আনন্দধ্বনি সহ, প্রধান দূতের রব সহ, এবং ঈশ্বরের তূরীবাদ্য সহ স্বর্গ হইতে নামিয়া আসিবেন, আর যাহারা খ্রীষ্টে মরিয়াছে তাহারা প্রথমে উঠিবে।

পরে আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা অবশিষ্ট থাকিব, আমরা আকাশে প্রভুর সহিত সাক্ষাৎ করিবার নিমিত্ত একসঙ্গে তাহাদের সহিত মেঘযোগে নীত হইব; আর এইরূপে সতত প্রভুর সঙ্গে থাকিব।”2১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।

(৩) “দেখ, আমি তোমাদিগকে এক নিগূঢ়তত্ত্ব বলি; আমরা সকলে নিদ্রাগত হইব না (মরিব না), কিন্তু সকলে রূপান্তরীকৃত হইব; এক মুহূর্তের মধ্যে, চক্ষুর পলকে, শেষ তূরীধ্বনিতে হইবে; কেননা তূরী (সিঙ্গা) বাজিবে, তাহাতে মৃতেরা অক্ষয় হইয়া উত্থাপিত হইবে, এবং আমরা রূপান্তরীকৃত হইব।”3১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।

(৪) “আর তিনি আমাকে কহিলেন, তুমি এ গ্রন্থের ভাববাণীর বচন সকল মুদ্রাঙ্কিত করিও না (লিখিও না); কেননা সময় (কিয়ামত) সন্নিকট। যে অধর্মচারী, সে ইহার পরেও অধর্মাচরণ করুক এবং যে কলুষিত, সে ইহার পরেও কলুষিত হউক; এবং যে ধার্মিক, সে ইহার পরেও ধর্মাচরণ করুক; এবং যে পবিত্র, সে ইহার পরেও পবিত্রকৃত হউক।”4প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১ খৃস্টানদের মধ্যে প্রচলিত ইঞ্জিল শরীফ ঈসা (আ)-কে অত্যন্ত অবমানাকরভাবে চিত্রিত করেছে।

যেমন, তিনি মানুষদেরকে গালি দিতেন5মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩, অন্য বংশ বা ধর্মের মানুষদের শূকর ও কুকুর বলতেন6মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯, পূর্ববর্তী নবীদেরকে চোর-ডাকাত বলতেন7যোহন ১০/৭-৮, নিরপরাধ মানুষদেরকে অভিশাপ দিতেন8মথি ২৩/৩৫-৩৬, অকারণে হত্যা করতেন9মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২, অবিশ্বাসীদেরকে নির্বিচারে ধরে ধরে জবাই করার নির্দেশ দিতেন10লূক ১৯/২৭, মিথ্যা বলতেন11মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫,

বেশ্যা মেয়েদেরকে তাঁকে স্পর্শ করতে ও চুম্বন করতে দিতেন12লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫, নিজের মায়ের সাথে ভয়ঙ্কর বেয়াদবি করেছেন13মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬, তিনি অত্যন্ত ভীত ও কাপরুষ ছিলেন14মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮। সাধু পল ও তাঁর অনুসারীরা ঈসা (আ)-কে ‘মালউন’ বা অভিশপ্ত বলে দাবি করেছেন15গালাতীয় ১০-১৩। (নাঊযু বিল্লাহ!)

খৃস্টান প্রচারককে বলুন, আপনারা ঈসা (আ)-এর অনুসারী নন, আপনারা সাধু পলের অনুসারী। আপনার ঈসা (আ)-কে অপমানিত করেছেন এবং তাঁর নাম ভাঙ্গিয়ে শিরক-কুফর প্রচার করেছেন। তিনি অবতরণ করে প্রথমে আপনাদের মত মিথ্যচারীদেরকেই ধ্বংস করবেন। কাজেই তাঁর বিষয়ে সাধুপলের মিথ্যা ধর্ম পরিত্যাগ করে কুরআনের বিশুদ্ধ বিশ্বাস গ্রহণ করে তাঁর পুনরাগমনের প্রস্তুতি গ্রহণ করুন।

আল ফিকহুল আকবার (বঙ্গানুবাদ ও ব্যাখ্যা)

ড. খোন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর রাহিমাহুল্লাহ।

(১) “কেননা মনুষ্যপুত্র আপন দূতগণের (angels) সহিত আপন পিতার প্রতাপে আসিবেন, আর তখন প্রত্যেক ব্যক্তিকে তাহার ক্রিয়ানুসারে প্রতিফল দিবেন। আমি তোমাদিগকে সত্য কহিতেছি, যাহারা এখানে দাঁড়াইয়া রহিয়াছে, তাহাদের মধ্যে এমন কয়েক জন আছে, যাহারা কোন মতে মৃত্যুর আস্বাদ পাইবে না, যে পর্যন্ত মনুষ্যপুত্রকে আপনার রাজ্যে আসিতে না দেখিবে।”16মথি ১৬/২৭-২৮।

(২) “আমরা প্রভুর বাক্য দ্বারা তোমাদিগকে ইহা বলিতেছি যে, আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা প্রভুর আগমন পর্যন্ত অবশিষ্ট থাকিব, আমরা কোন ক্রমেই সেই নিদ্রাগত লোকদের অগ্রগামী হইব না। কারণ প্রভু স্বয়ং আনন্দধ্বনি সহ, প্রধান দূতের রব সহ, এবং ঈশ্বরের তূরীবাদ্য সহ স্বর্গ হইতে নামিয়া আসিবেন, আর যাহারা খ্রীষ্টে মরিয়াছে তাহারা প্রথমে উঠিবে।

পরে আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা অবশিষ্ট থাকিব, আমরা আকাশে প্রভুর সহিত সাক্ষাৎ করিবার নিমিত্ত একসঙ্গে তাহাদের সহিত মেঘযোগে নীত হইব; আর এইরূপে সতত প্রভুর সঙ্গে থাকিব।”17১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।

(৩) “দেখ, আমি তোমাদিগকে এক নিগূঢ়তত্ত্ব বলি; আমরা সকলে নিদ্রাগত হইব না (মরিব না), কিন্তু সকলে রূপান্তরীকৃত হইব; এক মুহূর্তের মধ্যে, চক্ষুর পলকে, শেষ তূরীধ্বনিতে হইবে; কেননা তূরী (সিঙ্গা) বাজিবে, তাহাতে মৃতেরা অক্ষয় হইয়া উত্থাপিত হইবে, এবং আমরা রূপান্তরীকৃত হইব।”18১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।

(৪) “আর তিনি আমাকে কহিলেন, তুমি এ গ্রন্থের ভাববাণীর বচন সকল মুদ্রাঙ্কিত করিও না (লিখিও না); কেননা সময় (কিয়ামত) সন্নিকট। যে অধর্মচারী, সে ইহার পরেও অধর্মাচরণ করুক এবং যে কলুষিত, সে ইহার পরেও কলুষিত হউক; এবং যে ধার্মিক, সে ইহার পরেও ধর্মাচরণ করুক; এবং যে পবিত্র, সে ইহার পরেও পবিত্রকৃত হউক।”19প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১ খৃস্টানদের মধ্যে প্রচলিত ইঞ্জিল শরীফ ঈসা (আ)-কে অত্যন্ত অবমানাকরভাবে চিত্রিত করেছে।

যেমন, তিনি মানুষদেরকে গালি দিতেন20মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩, অন্য বংশ বা ধর্মের মানুষদের শূকর ও কুকুর বলতেন21মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯, পূর্ববর্তী নবীদেরকে চোর-ডাকাত বলতেন22যোহন ১০/৭-৮, নিরপরাধ মানুষদেরকে অভিশাপ দিতেন23মথি ২৩/৩৫-৩৬, অকারণে হত্যা করতেন24মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২, অবিশ্বাসীদেরকে নির্বিচারে ধরে ধরে জবাই করার নির্দেশ দিতেন25লূক ১৯/২৭, মিথ্যা বলতেন26মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫,

বেশ্যা মেয়েদেরকে তাঁকে স্পর্শ করতে ও চুম্বন করতে দিতেন27লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫, নিজের মায়ের সাথে ভয়ঙ্কর বেয়াদবি করেছেন28মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬, তিনি অত্যন্ত ভীত ও কাপরুষ ছিলেন29মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮। সাধু পল ও তাঁর অনুসারীরা ঈসা (আ)-কে ‘মালউন’ বা অভিশপ্ত বলে দাবি করেছেন30গালাতীয় ১০-১৩। (নাঊযু বিল্লাহ!)

খৃস্টান প্রচারককে বলুন, আপনারা ঈসা (আ)-এর অনুসারী নন, আপনারা সাধু পলের অনুসারী। আপনার ঈসা (আ)-কে অপমানিত করেছেন এবং তাঁর নাম ভাঙ্গিয়ে শিরক-কুফর প্রচার করেছেন। তিনি অবতরণ করে প্রথমে আপনাদের মত মিথ্যচারীদেরকেই ধ্বংস করবেন। কাজেই তাঁর বিষয়ে সাধুপলের মিথ্যা ধর্ম পরিত্যাগ করে কুরআনের বিশুদ্ধ বিশ্বাস গ্রহণ করে তাঁর পুনরাগমনের প্রস্তুতি গ্রহণ করুন।

আল ফিকহুল আকবার (বঙ্গানুবাদ ও ব্যাখ্যা)

ড. খোন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর রাহিমাহুল্লাহ।

(১) “কেননা মনুষ্যপুত্র আপন দূতগণের (angels) সহিত আপন পিতার প্রতাপে আসিবেন, আর তখন প্রত্যেক ব্যক্তিকে তাহার ক্রিয়ানুসারে প্রতিফল দিবেন। আমি তোমাদিগকে সত্য কহিতেছি, যাহারা এখানে দাঁড়াইয়া রহিয়াছে, তাহাদের মধ্যে এমন কয়েক জন আছে, যাহারা কোন মতে মৃত্যুর আস্বাদ পাইবে না, যে পর্যন্ত মনুষ্যপুত্রকে আপনার রাজ্যে আসিতে না দেখিবে।”31মথি ১৬/২৭-২৮।

(২) “আমরা প্রভুর বাক্য দ্বারা তোমাদিগকে ইহা বলিতেছি যে, আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা প্রভুর আগমন পর্যন্ত অবশিষ্ট থাকিব, আমরা কোন ক্রমেই সেই নিদ্রাগত লোকদের অগ্রগামী হইব না। কারণ প্রভু স্বয়ং আনন্দধ্বনি সহ, প্রধান দূতের রব সহ, এবং ঈশ্বরের তূরীবাদ্য সহ স্বর্গ হইতে নামিয়া আসিবেন, আর যাহারা খ্রীষ্টে মরিয়াছে তাহারা প্রথমে উঠিবে।

পরে আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা অবশিষ্ট থাকিব, আমরা আকাশে প্রভুর সহিত সাক্ষাৎ করিবার নিমিত্ত একসঙ্গে তাহাদের সহিত মেঘযোগে নীত হইব; আর এইরূপে সতত প্রভুর সঙ্গে থাকিব।”32১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।

(৩) “দেখ, আমি তোমাদিগকে এক নিগূঢ়তত্ত্ব বলি; আমরা সকলে নিদ্রাগত হইব না (মরিব না), কিন্তু সকলে রূপান্তরীকৃত হইব; এক মুহূর্তের মধ্যে, চক্ষুর পলকে, শেষ তূরীধ্বনিতে হইবে; কেননা তূরী (সিঙ্গা) বাজিবে, তাহাতে মৃতেরা অক্ষয় হইয়া উত্থাপিত হইবে, এবং আমরা রূপান্তরীকৃত হইব।”33১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।

(৪) “আর তিনি আমাকে কহিলেন, তুমি এ গ্রন্থের ভাববাণীর বচন সকল মুদ্রাঙ্কিত করিও না (লিখিও না); কেননা সময় (কিয়ামত) সন্নিকট। যে অধর্মচারী, সে ইহার পরেও অধর্মাচরণ করুক এবং যে কলুষিত, সে ইহার পরেও কলুষিত হউক; এবং যে ধার্মিক, সে ইহার পরেও ধর্মাচরণ করুক; এবং যে পবিত্র, সে ইহার পরেও পবিত্রকৃত হউক।”34প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১ খৃস্টানদের মধ্যে প্রচলিত ইঞ্জিল শরীফ ঈসা (আ)-কে অত্যন্ত অবমানাকরভাবে চিত্রিত করেছে।

যেমন, তিনি মানুষদেরকে গালি দিতেন35মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩, অন্য বংশ বা ধর্মের মানুষদের শূকর ও কুকুর বলতেন36মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯, পূর্ববর্তী নবীদেরকে চোর-ডাকাত বলতেন37যোহন ১০/৭-৮, নিরপরাধ মানুষদেরকে অভিশাপ দিতেন38মথি ২৩/৩৫-৩৬, অকারণে হত্যা করতেন39মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২, অবিশ্বাসীদেরকে নির্বিচারে ধরে ধরে জবাই করার নির্দেশ দিতেন40লূক ১৯/২৭, মিথ্যা বলতেন41মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫,

বেশ্যা মেয়েদেরকে তাঁকে স্পর্শ করতে ও চুম্বন করতে দিতেন42লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫, নিজের মায়ের সাথে ভয়ঙ্কর বেয়াদবি করেছেন43মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬, তিনি অত্যন্ত ভীত ও কাপরুষ ছিলেন44মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮। সাধু পল ও তাঁর অনুসারীরা ঈসা (আ)-কে ‘মালউন’ বা অভিশপ্ত বলে দাবি করেছেন45গালাতীয় ১০-১৩। (নাঊযু বিল্লাহ!)

খৃস্টান প্রচারককে বলুন, আপনারা ঈসা (আ)-এর অনুসারী নন, আপনারা সাধু পলের অনুসারী। আপনার ঈসা (আ)-কে অপমানিত করেছেন এবং তাঁর নাম ভাঙ্গিয়ে শিরক-কুফর প্রচার করেছেন। তিনি অবতরণ করে প্রথমে আপনাদের মত মিথ্যচারীদেরকেই ধ্বংস করবেন। কাজেই তাঁর বিষয়ে সাধুপলের মিথ্যা ধর্ম পরিত্যাগ করে কুরআনের বিশুদ্ধ বিশ্বাস গ্রহণ করে তাঁর পুনরাগমনের প্রস্তুতি গ্রহণ করুন।

আল ফিকহুল আকবার (বঙ্গানুবাদ ও ব্যাখ্যা)

ড. খোন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর রাহিমাহুল্লাহ।

(১) “কেননা মনুষ্যপুত্র আপন দূতগণের (angels) সহিত আপন পিতার প্রতাপে আসিবেন, আর তখন প্রত্যেক ব্যক্তিকে তাহার ক্রিয়ানুসারে প্রতিফল দিবেন। আমি তোমাদিগকে সত্য কহিতেছি, যাহারা এখানে দাঁড়াইয়া রহিয়াছে, তাহাদের মধ্যে এমন কয়েক জন আছে, যাহারা কোন মতে মৃত্যুর আস্বাদ পাইবে না, যে পর্যন্ত মনুষ্যপুত্রকে আপনার রাজ্যে আসিতে না দেখিবে।”46মথি ১৬/২৭-২৮।

(২) “আমরা প্রভুর বাক্য দ্বারা তোমাদিগকে ইহা বলিতেছি যে, আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা প্রভুর আগমন পর্যন্ত অবশিষ্ট থাকিব, আমরা কোন ক্রমেই সেই নিদ্রাগত লোকদের অগ্রগামী হইব না। কারণ প্রভু স্বয়ং আনন্দধ্বনি সহ, প্রধান দূতের রব সহ, এবং ঈশ্বরের তূরীবাদ্য সহ স্বর্গ হইতে নামিয়া আসিবেন, আর যাহারা খ্রীষ্টে মরিয়াছে তাহারা প্রথমে উঠিবে।

পরে আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা অবশিষ্ট থাকিব, আমরা আকাশে প্রভুর সহিত সাক্ষাৎ করিবার নিমিত্ত একসঙ্গে তাহাদের সহিত মেঘযোগে নীত হইব; আর এইরূপে সতত প্রভুর সঙ্গে থাকিব।”47১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।

(৩) “দেখ, আমি তোমাদিগকে এক নিগূঢ়তত্ত্ব বলি; আমরা সকলে নিদ্রাগত হইব না (মরিব না), কিন্তু সকলে রূপান্তরীকৃত হইব; এক মুহূর্তের মধ্যে, চক্ষুর পলকে, শেষ তূরীধ্বনিতে হইবে; কেননা তূরী (সিঙ্গা) বাজিবে, তাহাতে মৃতেরা অক্ষয় হইয়া উত্থাপিত হইবে, এবং আমরা রূপান্তরীকৃত হইব।”48১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।

(৪) “আর তিনি আমাকে কহিলেন, তুমি এ গ্রন্থের ভাববাণীর বচন সকল মুদ্রাঙ্কিত করিও না (লিখিও না); কেননা সময় (কিয়ামত) সন্নিকট। যে অধর্মচারী, সে ইহার পরেও অধর্মাচরণ করুক এবং যে কলুষিত, সে ইহার পরেও কলুষিত হউক; এবং যে ধার্মিক, সে ইহার পরেও ধর্মাচরণ করুক; এবং যে পবিত্র, সে ইহার পরেও পবিত্রকৃত হউক।”49প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১ খৃস্টানদের মধ্যে প্রচলিত ইঞ্জিল শরীফ ঈসা (আ)-কে অত্যন্ত অবমানাকরভাবে চিত্রিত করেছে।

যেমন, তিনি মানুষদেরকে গালি দিতেন50মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩, অন্য বংশ বা ধর্মের মানুষদের শূকর ও কুকুর বলতেন51মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯, পূর্ববর্তী নবীদেরকে চোর-ডাকাত বলতেন52যোহন ১০/৭-৮, নিরপরাধ মানুষদেরকে অভিশাপ দিতেন53মথি ২৩/৩৫-৩৬, অকারণে হত্যা করতেন54মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২, অবিশ্বাসীদেরকে নির্বিচারে ধরে ধরে জবাই করার নির্দেশ দিতেন55লূক ১৯/২৭, মিথ্যা বলতেন56মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫,

বেশ্যা মেয়েদেরকে তাঁকে স্পর্শ করতে ও চুম্বন করতে দিতেন57লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫, নিজের মায়ের সাথে ভয়ঙ্কর বেয়াদবি করেছেন58মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬, তিনি অত্যন্ত ভীত ও কাপরুষ ছিলেন59মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮। সাধু পল ও তাঁর অনুসারীরা ঈসা (আ)-কে ‘মালউন’ বা অভিশপ্ত বলে দাবি করেছেন60গালাতীয় ১০-১৩। (নাঊযু বিল্লাহ!)

খৃস্টান প্রচারককে বলুন, আপনারা ঈসা (আ)-এর অনুসারী নন, আপনারা সাধু পলের অনুসারী। আপনার ঈসা (আ)-কে অপমানিত করেছেন এবং তাঁর নাম ভাঙ্গিয়ে শিরক-কুফর প্রচার করেছেন। তিনি অবতরণ করে প্রথমে আপনাদের মত মিথ্যচারীদেরকেই ধ্বংস করবেন। কাজেই তাঁর বিষয়ে সাধুপলের মিথ্যা ধর্ম পরিত্যাগ করে কুরআনের বিশুদ্ধ বিশ্বাস গ্রহণ করে তাঁর পুনরাগমনের প্রস্তুতি গ্রহণ করুন।

আল ফিকহুল আকবার (বঙ্গানুবাদ ও ব্যাখ্যা)

ড. খোন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর রাহিমাহুল্লাহ।

(১) “কেননা মনুষ্যপুত্র আপন দূতগণের (angels) সহিত আপন পিতার প্রতাপে আসিবেন, আর তখন প্রত্যেক ব্যক্তিকে তাহার ক্রিয়ানুসারে প্রতিফল দিবেন। আমি তোমাদিগকে সত্য কহিতেছি, যাহারা এখানে দাঁড়াইয়া রহিয়াছে, তাহাদের মধ্যে এমন কয়েক জন আছে, যাহারা কোন মতে মৃত্যুর আস্বাদ পাইবে না, যে পর্যন্ত মনুষ্যপুত্রকে আপনার রাজ্যে আসিতে না দেখিবে।”61মথি ১৬/২৭-২৮।

(২) “আমরা প্রভুর বাক্য দ্বারা তোমাদিগকে ইহা বলিতেছি যে, আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা প্রভুর আগমন পর্যন্ত অবশিষ্ট থাকিব, আমরা কোন ক্রমেই সেই নিদ্রাগত লোকদের অগ্রগামী হইব না। কারণ প্রভু স্বয়ং আনন্দধ্বনি সহ, প্রধান দূতের রব সহ, এবং ঈশ্বরের তূরীবাদ্য সহ স্বর্গ হইতে নামিয়া আসিবেন, আর যাহারা খ্রীষ্টে মরিয়াছে তাহারা প্রথমে উঠিবে।

পরে আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা অবশিষ্ট থাকিব, আমরা আকাশে প্রভুর সহিত সাক্ষাৎ করিবার নিমিত্ত একসঙ্গে তাহাদের সহিত মেঘযোগে নীত হইব; আর এইরূপে সতত প্রভুর সঙ্গে থাকিব।”62১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।

(৩) “দেখ, আমি তোমাদিগকে এক নিগূঢ়তত্ত্ব বলি; আমরা সকলে নিদ্রাগত হইব না (মরিব না), কিন্তু সকলে রূপান্তরীকৃত হইব; এক মুহূর্তের মধ্যে, চক্ষুর পলকে, শেষ তূরীধ্বনিতে হইবে; কেননা তূরী (সিঙ্গা) বাজিবে, তাহাতে মৃতেরা অক্ষয় হইয়া উত্থাপিত হইবে, এবং আমরা রূপান্তরীকৃত হইব।”63১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।

(৪) “আর তিনি আমাকে কহিলেন, তুমি এ গ্রন্থের ভাববাণীর বচন সকল মুদ্রাঙ্কিত করিও না (লিখিও না); কেননা সময় (কিয়ামত) সন্নিকট। যে অধর্মচারী, সে ইহার পরেও অধর্মাচরণ করুক এবং যে কলুষিত, সে ইহার পরেও কলুষিত হউক; এবং যে ধার্মিক, সে ইহার পরেও ধর্মাচরণ করুক; এবং যে পবিত্র, সে ইহার পরেও পবিত্রকৃত হউক।”64প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১ খৃস্টানদের মধ্যে প্রচলিত ইঞ্জিল শরীফ ঈসা (আ)-কে অত্যন্ত অবমানাকরভাবে চিত্রিত করেছে।

যেমন, তিনি মানুষদেরকে গালি দিতেন65মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩, অন্য বংশ বা ধর্মের মানুষদের শূকর ও কুকুর বলতেন66মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯, পূর্ববর্তী নবীদেরকে চোর-ডাকাত বলতেন67যোহন ১০/৭-৮, নিরপরাধ মানুষদেরকে অভিশাপ দিতেন68মথি ২৩/৩৫-৩৬, অকারণে হত্যা করতেন69মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২, অবিশ্বাসীদেরকে নির্বিচারে ধরে ধরে জবাই করার নির্দেশ দিতেন70লূক ১৯/২৭, মিথ্যা বলতেন71মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫,

বেশ্যা মেয়েদেরকে তাঁকে স্পর্শ করতে ও চুম্বন করতে দিতেন72লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫, নিজের মায়ের সাথে ভয়ঙ্কর বেয়াদবি করেছেন73মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬, তিনি অত্যন্ত ভীত ও কাপরুষ ছিলেন74মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮। সাধু পল ও তাঁর অনুসারীরা ঈসা (আ)-কে ‘মালউন’ বা অভিশপ্ত বলে দাবি করেছেন75গালাতীয় ১০-১৩। (নাঊযু বিল্লাহ!)

খৃস্টান প্রচারককে বলুন, আপনারা ঈসা (আ)-এর অনুসারী নন, আপনারা সাধু পলের অনুসারী। আপনার ঈসা (আ)-কে অপমানিত করেছেন এবং তাঁর নাম ভাঙ্গিয়ে শিরক-কুফর প্রচার করেছেন। তিনি অবতরণ করে প্রথমে আপনাদের মত মিথ্যচারীদেরকেই ধ্বংস করবেন। কাজেই তাঁর বিষয়ে সাধুপলের মিথ্যা ধর্ম পরিত্যাগ করে কুরআনের বিশুদ্ধ বিশ্বাস গ্রহণ করে তাঁর পুনরাগমনের প্রস্তুতি গ্রহণ করুন।

আল ফিকহুল আকবার (বঙ্গানুবাদ ও ব্যাখ্যা)

ড. খোন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর রাহিমাহুল্লাহ।

(১) “কেননা মনুষ্যপুত্র আপন দূতগণের (angels) সহিত আপন পিতার প্রতাপে আসিবেন, আর তখন প্রত্যেক ব্যক্তিকে তাহার ক্রিয়ানুসারে প্রতিফল দিবেন। আমি তোমাদিগকে সত্য কহিতেছি, যাহারা এখানে দাঁড়াইয়া রহিয়াছে, তাহাদের মধ্যে এমন কয়েক জন আছে, যাহারা কোন মতে মৃত্যুর আস্বাদ পাইবে না, যে পর্যন্ত মনুষ্যপুত্রকে আপনার রাজ্যে আসিতে না দেখিবে।”76মথি ১৬/২৭-২৮।

(২) “আমরা প্রভুর বাক্য দ্বারা তোমাদিগকে ইহা বলিতেছি যে, আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা প্রভুর আগমন পর্যন্ত অবশিষ্ট থাকিব, আমরা কোন ক্রমেই সেই নিদ্রাগত লোকদের অগ্রগামী হইব না। কারণ প্রভু স্বয়ং আনন্দধ্বনি সহ, প্রধান দূতের রব সহ, এবং ঈশ্বরের তূরীবাদ্য সহ স্বর্গ হইতে নামিয়া আসিবেন, আর যাহারা খ্রীষ্টে মরিয়াছে তাহারা প্রথমে উঠিবে।

পরে আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা অবশিষ্ট থাকিব, আমরা আকাশে প্রভুর সহিত সাক্ষাৎ করিবার নিমিত্ত একসঙ্গে তাহাদের সহিত মেঘযোগে নীত হইব; আর এইরূপে সতত প্রভুর সঙ্গে থাকিব।”77১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।

(৩) “দেখ, আমি তোমাদিগকে এক নিগূঢ়তত্ত্ব বলি; আমরা সকলে নিদ্রাগত হইব না (মরিব না), কিন্তু সকলে রূপান্তরীকৃত হইব; এক মুহূর্তের মধ্যে, চক্ষুর পলকে, শেষ তূরীধ্বনিতে হইবে; কেননা তূরী (সিঙ্গা) বাজিবে, তাহাতে মৃতেরা অক্ষয় হইয়া উত্থাপিত হইবে, এবং আমরা রূপান্তরীকৃত হইব।”78১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।

(৪) “আর তিনি আমাকে কহিলেন, তুমি এ গ্রন্থের ভাববাণীর বচন সকল মুদ্রাঙ্কিত করিও না (লিখিও না); কেননা সময় (কিয়ামত) সন্নিকট। যে অধর্মচারী, সে ইহার পরেও অধর্মাচরণ করুক এবং যে কলুষিত, সে ইহার পরেও কলুষিত হউক; এবং যে ধার্মিক, সে ইহার পরেও ধর্মাচরণ করুক; এবং যে পবিত্র, সে ইহার পরেও পবিত্রকৃত হউক।”79প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১ খৃস্টানদের মধ্যে প্রচলিত ইঞ্জিল শরীফ ঈসা (আ)-কে অত্যন্ত অবমানাকরভাবে চিত্রিত করেছে।

যেমন, তিনি মানুষদেরকে গালি দিতেন80মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩, অন্য বংশ বা ধর্মের মানুষদের শূকর ও কুকুর বলতেন81মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯, পূর্ববর্তী নবীদেরকে চোর-ডাকাত বলতেন82যোহন ১০/৭-৮, নিরপরাধ মানুষদেরকে অভিশাপ দিতেন83মথি ২৩/৩৫-৩৬, অকারণে হত্যা করতেন84মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২, অবিশ্বাসীদেরকে নির্বিচারে ধরে ধরে জবাই করার নির্দেশ দিতেন85লূক ১৯/২৭, মিথ্যা বলতেন86মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫,

বেশ্যা মেয়েদেরকে তাঁকে স্পর্শ করতে ও চুম্বন করতে দিতেন87লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫, নিজের মায়ের সাথে ভয়ঙ্কর বেয়াদবি করেছেন88মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬, তিনি অত্যন্ত ভীত ও কাপরুষ ছিলেন89মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮। সাধু পল ও তাঁর অনুসারীরা ঈসা (আ)-কে ‘মালউন’ বা অভিশপ্ত বলে দাবি করেছেন90গালাতীয় ১০-১৩। (নাঊযু বিল্লাহ!)

খৃস্টান প্রচারককে বলুন, আপনারা ঈসা (আ)-এর অনুসারী নন, আপনারা সাধু পলের অনুসারী। আপনার ঈসা (আ)-কে অপমানিত করেছেন এবং তাঁর নাম ভাঙ্গিয়ে শিরক-কুফর প্রচার করেছেন। তিনি অবতরণ করে প্রথমে আপনাদের মত মিথ্যচারীদেরকেই ধ্বংস করবেন। কাজেই তাঁর বিষয়ে সাধুপলের মিথ্যা ধর্ম পরিত্যাগ করে কুরআনের বিশুদ্ধ বিশ্বাস গ্রহণ করে তাঁর পুনরাগমনের প্রস্তুতি গ্রহণ করুন।

আল ফিকহুল আকবার (বঙ্গানুবাদ ও ব্যাখ্যা)

ড. খোন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর রাহিমাহুল্লাহ।

(১) “কেননা মনুষ্যপুত্র আপন দূতগণের (angels) সহিত আপন পিতার প্রতাপে আসিবেন, আর তখন প্রত্যেক ব্যক্তিকে তাহার ক্রিয়ানুসারে প্রতিফল দিবেন। আমি তোমাদিগকে সত্য কহিতেছি, যাহারা এখানে দাঁড়াইয়া রহিয়াছে, তাহাদের মধ্যে এমন কয়েক জন আছে, যাহারা কোন মতে মৃত্যুর আস্বাদ পাইবে না, যে পর্যন্ত মনুষ্যপুত্রকে আপনার রাজ্যে আসিতে না দেখিবে।”91মথি ১৬/২৭-২৮।

(২) “আমরা প্রভুর বাক্য দ্বারা তোমাদিগকে ইহা বলিতেছি যে, আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা প্রভুর আগমন পর্যন্ত অবশিষ্ট থাকিব, আমরা কোন ক্রমেই সেই নিদ্রাগত লোকদের অগ্রগামী হইব না। কারণ প্রভু স্বয়ং আনন্দধ্বনি সহ, প্রধান দূতের রব সহ, এবং ঈশ্বরের তূরীবাদ্য সহ স্বর্গ হইতে নামিয়া আসিবেন, আর যাহারা খ্রীষ্টে মরিয়াছে তাহারা প্রথমে উঠিবে।

পরে আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা অবশিষ্ট থাকিব, আমরা আকাশে প্রভুর সহিত সাক্ষাৎ করিবার নিমিত্ত একসঙ্গে তাহাদের সহিত মেঘযোগে নীত হইব; আর এইরূপে সতত প্রভুর সঙ্গে থাকিব।”92১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।

(৩) “দেখ, আমি তোমাদিগকে এক নিগূঢ়তত্ত্ব বলি; আমরা সকলে নিদ্রাগত হইব না (মরিব না), কিন্তু সকলে রূপান্তরীকৃত হইব; এক মুহূর্তের মধ্যে, চক্ষুর পলকে, শেষ তূরীধ্বনিতে হইবে; কেননা তূরী (সিঙ্গা) বাজিবে, তাহাতে মৃতেরা অক্ষয় হইয়া উত্থাপিত হইবে, এবং আমরা রূপান্তরীকৃত হইব।”93১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।

(৪) “আর তিনি আমাকে কহিলেন, তুমি এ গ্রন্থের ভাববাণীর বচন সকল মুদ্রাঙ্কিত করিও না (লিখিও না); কেননা সময় (কিয়ামত) সন্নিকট। যে অধর্মচারী, সে ইহার পরেও অধর্মাচরণ করুক এবং যে কলুষিত, সে ইহার পরেও কলুষিত হউক; এবং যে ধার্মিক, সে ইহার পরেও ধর্মাচরণ করুক; এবং যে পবিত্র, সে ইহার পরেও পবিত্রকৃত হউক।”94প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১ খৃস্টানদের মধ্যে প্রচলিত ইঞ্জিল শরীফ ঈসা (আ)-কে অত্যন্ত অবমানাকরভাবে চিত্রিত করেছে।

যেমন, তিনি মানুষদেরকে গালি দিতেন95মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩, অন্য বংশ বা ধর্মের মানুষদের শূকর ও কুকুর বলতেন96মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯, পূর্ববর্তী নবীদেরকে চোর-ডাকাত বলতেন97যোহন ১০/৭-৮, নিরপরাধ মানুষদেরকে অভিশাপ দিতেন98মথি ২৩/৩৫-৩৬, অকারণে হত্যা করতেন99মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২, অবিশ্বাসীদেরকে নির্বিচারে ধরে ধরে জবাই করার নির্দেশ দিতেন100লূক ১৯/২৭, মিথ্যা বলতেন101মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫,

বেশ্যা মেয়েদেরকে তাঁকে স্পর্শ করতে ও চুম্বন করতে দিতেন102লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫, নিজের মায়ের সাথে ভয়ঙ্কর বেয়াদবি করেছেন103মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬, তিনি অত্যন্ত ভীত ও কাপরুষ ছিলেন104মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮। সাধু পল ও তাঁর অনুসারীরা ঈসা (আ)-কে ‘মালউন’ বা অভিশপ্ত বলে দাবি করেছেন105গালাতীয় ১০-১৩। (নাঊযু বিল্লাহ!)

খৃস্টান প্রচারককে বলুন, আপনারা ঈসা (আ)-এর অনুসারী নন, আপনারা সাধু পলের অনুসারী। আপনার ঈসা (আ)-কে অপমানিত করেছেন এবং তাঁর নাম ভাঙ্গিয়ে শিরক-কুফর প্রচার করেছেন। তিনি অবতরণ করে প্রথমে আপনাদের মত মিথ্যচারীদেরকেই ধ্বংস করবেন। কাজেই তাঁর বিষয়ে সাধুপলের মিথ্যা ধর্ম পরিত্যাগ করে কুরআনের বিশুদ্ধ বিশ্বাস গ্রহণ করে তাঁর পুনরাগমনের প্রস্তুতি গ্রহণ করুন।

আল ফিকহুল আকবার (বঙ্গানুবাদ ও ব্যাখ্যা)

ড. খোন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর রাহিমাহুল্লাহ।

(১) “কেননা মনুষ্যপুত্র আপন দূতগণের (angels) সহিত আপন পিতার প্রতাপে আসিবেন, আর তখন প্রত্যেক ব্যক্তিকে তাহার ক্রিয়ানুসারে প্রতিফল দিবেন। আমি তোমাদিগকে সত্য কহিতেছি, যাহারা এখানে দাঁড়াইয়া রহিয়াছে, তাহাদের মধ্যে এমন কয়েক জন আছে, যাহারা কোন মতে মৃত্যুর আস্বাদ পাইবে না, যে পর্যন্ত মনুষ্যপুত্রকে আপনার রাজ্যে আসিতে না দেখিবে।”106মথি ১৬/২৭-২৮।

(২) “আমরা প্রভুর বাক্য দ্বারা তোমাদিগকে ইহা বলিতেছি যে, আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা প্রভুর আগমন পর্যন্ত অবশিষ্ট থাকিব, আমরা কোন ক্রমেই সেই নিদ্রাগত লোকদের অগ্রগামী হইব না। কারণ প্রভু স্বয়ং আনন্দধ্বনি সহ, প্রধান দূতের রব সহ, এবং ঈশ্বরের তূরীবাদ্য সহ স্বর্গ হইতে নামিয়া আসিবেন, আর যাহারা খ্রীষ্টে মরিয়াছে তাহারা প্রথমে উঠিবে।

পরে আমরা যাহারা জীবিত আছি, যাহারা অবশিষ্ট থাকিব, আমরা আকাশে প্রভুর সহিত সাক্ষাৎ করিবার নিমিত্ত একসঙ্গে তাহাদের সহিত মেঘযোগে নীত হইব; আর এইরূপে সতত প্রভুর সঙ্গে থাকিব।”107১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।

(৩) “দেখ, আমি তোমাদিগকে এক নিগূঢ়তত্ত্ব বলি; আমরা সকলে নিদ্রাগত হইব না (মরিব না), কিন্তু সকলে রূপান্তরীকৃত হইব; এক মুহূর্তের মধ্যে, চক্ষুর পলকে, শেষ তূরীধ্বনিতে হইবে; কেননা তূরী (সিঙ্গা) বাজিবে, তাহাতে মৃতেরা অক্ষয় হইয়া উত্থাপিত হইবে, এবং আমরা রূপান্তরীকৃত হইব।”108১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।

(৪) “আর তিনি আমাকে কহিলেন, তুমি এ গ্রন্থের ভাববাণীর বচন সকল মুদ্রাঙ্কিত করিও না (লিখিও না); কেননা সময় (কিয়ামত) সন্নিকট। যে অধর্মচারী, সে ইহার পরেও অধর্মাচরণ করুক এবং যে কলুষিত, সে ইহার পরেও কলুষিত হউক; এবং যে ধার্মিক, সে ইহার পরেও ধর্মাচরণ করুক; এবং যে পবিত্র, সে ইহার পরেও পবিত্রকৃত হউক।”109প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১ খৃস্টানদের মধ্যে প্রচলিত ইঞ্জিল শরীফ ঈসা (আ)-কে অত্যন্ত অবমানাকরভাবে চিত্রিত করেছে।

যেমন, তিনি মানুষদেরকে গালি দিতেন110মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩, অন্য বংশ বা ধর্মের মানুষদের শূকর ও কুকুর বলতেন111মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯, পূর্ববর্তী নবীদেরকে চোর-ডাকাত বলতেন112যোহন ১০/৭-৮, নিরপরাধ মানুষদেরকে অভিশাপ দিতেন113মথি ২৩/৩৫-৩৬, অকারণে হত্যা করতেন114মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২, অবিশ্বাসীদেরকে নির্বিচারে ধরে ধরে জবাই করার নির্দেশ দিতেন115লূক ১৯/২৭, মিথ্যা বলতেন116মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫,

বেশ্যা মেয়েদেরকে তাঁকে স্পর্শ করতে ও চুম্বন করতে দিতেন117লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫, নিজের মায়ের সাথে ভয়ঙ্কর বেয়াদবি করেছেন118মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬, তিনি অত্যন্ত ভীত ও কাপরুষ ছিলেন119মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮। সাধু পল ও তাঁর অনুসারীরা ঈসা (আ)-কে ‘মালউন’ বা অভিশপ্ত বলে দাবি করেছেন120গালাতীয় ১০-১৩। (নাঊযু বিল্লাহ!)

খৃস্টান প্রচারককে বলুন, আপনারা ঈসা (আ)-এর অনুসারী নন, আপনারা সাধু পলের অনুসারী। আপনার ঈসা (আ)-কে অপমানিত করেছেন এবং তাঁর নাম ভাঙ্গিয়ে শিরক-কুফর প্রচার করেছেন। তিনি অবতরণ করে প্রথমে আপনাদের মত মিথ্যচারীদেরকেই ধ্বংস করবেন। কাজেই তাঁর বিষয়ে সাধুপলের মিথ্যা ধর্ম পরিত্যাগ করে কুরআনের বিশুদ্ধ বিশ্বাস গ্রহণ করে তাঁর পুনরাগমনের প্রস্তুতি গ্রহণ করুন।

আল ফিকহুল আকবার (বঙ্গানুবাদ ও ব্যাখ্যা)

ড. খোন্দকার আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর রাহিমাহুল্লাহ।

  • 1
    মথি ১৬/২৭-২৮।
  • 2
    ১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।
  • 3
    ১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।
  • 4
    প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১
  • 5
    মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩
  • 6
    মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯
  • 7
    যোহন ১০/৭-৮
  • 8
    মথি ২৩/৩৫-৩৬
  • 9
    মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২
  • 10
    লূক ১৯/২৭
  • 11
    মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫
  • 12
    লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫
  • 13
    মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬
  • 14
    মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮
  • 15
    গালাতীয় ১০-১৩
  • 16
    মথি ১৬/২৭-২৮।
  • 17
    ১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।
  • 18
    ১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।
  • 19
    প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১
  • 20
    মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩
  • 21
    মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯
  • 22
    যোহন ১০/৭-৮
  • 23
    মথি ২৩/৩৫-৩৬
  • 24
    মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২
  • 25
    লূক ১৯/২৭
  • 26
    মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫
  • 27
    লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫
  • 28
    মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬
  • 29
    মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮
  • 30
    গালাতীয় ১০-১৩
  • 31
    মথি ১৬/২৭-২৮।
  • 32
    ১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।
  • 33
    ১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।
  • 34
    প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১
  • 35
    মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩
  • 36
    মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯
  • 37
    যোহন ১০/৭-৮
  • 38
    মথি ২৩/৩৫-৩৬
  • 39
    মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২
  • 40
    লূক ১৯/২৭
  • 41
    মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫
  • 42
    লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫
  • 43
    মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬
  • 44
    মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮
  • 45
    গালাতীয় ১০-১৩
  • 46
    মথি ১৬/২৭-২৮।
  • 47
    ১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।
  • 48
    ১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।
  • 49
    প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১
  • 50
    মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩
  • 51
    মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯
  • 52
    যোহন ১০/৭-৮
  • 53
    মথি ২৩/৩৫-৩৬
  • 54
    মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২
  • 55
    লূক ১৯/২৭
  • 56
    মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫
  • 57
    লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫
  • 58
    মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬
  • 59
    মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮
  • 60
    গালাতীয় ১০-১৩
  • 61
    মথি ১৬/২৭-২৮।
  • 62
    ১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।
  • 63
    ১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।
  • 64
    প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১
  • 65
    মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩
  • 66
    মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯
  • 67
    যোহন ১০/৭-৮
  • 68
    মথি ২৩/৩৫-৩৬
  • 69
    মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২
  • 70
    লূক ১৯/২৭
  • 71
    মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫
  • 72
    লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫
  • 73
    মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬
  • 74
    মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮
  • 75
    গালাতীয় ১০-১৩
  • 76
    মথি ১৬/২৭-২৮।
  • 77
    ১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।
  • 78
    ১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।
  • 79
    প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১
  • 80
    মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩
  • 81
    মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯
  • 82
    যোহন ১০/৭-৮
  • 83
    মথি ২৩/৩৫-৩৬
  • 84
    মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২
  • 85
    লূক ১৯/২৭
  • 86
    মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫
  • 87
    লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫
  • 88
    মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬
  • 89
    মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮
  • 90
    গালাতীয় ১০-১৩
  • 91
    মথি ১৬/২৭-২৮।
  • 92
    ১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।
  • 93
    ১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।
  • 94
    প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১
  • 95
    মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩
  • 96
    মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯
  • 97
    যোহন ১০/৭-৮
  • 98
    মথি ২৩/৩৫-৩৬
  • 99
    মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২
  • 100
    লূক ১৯/২৭
  • 101
    মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫
  • 102
    লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫
  • 103
    মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬
  • 104
    মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮
  • 105
    গালাতীয় ১০-১৩
  • 106
    মথি ১৬/২৭-২৮।
  • 107
    ১ থিষলনীকীয় ৪/১৫-১৭।
  • 108
    ১ করিন্থীয় ১৫/৫১-৫২।
  • 109
    প্রকাশিত বাক্য/ প্রকাশিত কালাম ২২/১০-১১
  • 110
    মথি ১৬/২৩, ২৩/১৩-৩৩
  • 111
    মথি ৭/৬; ১৫/২২-২৮, মার্ক ৭/২৫-২৯
  • 112
    যোহন ১০/৭-৮
  • 113
    মথি ২৩/৩৫-৩৬
  • 114
    মথি ২১/১৮-২১, মার্ক ৫/১০-১৪; ১১/১২-২২
  • 115
    লূক ১৯/২৭
  • 116
    মথি ১৬/২৭-২৮: ১৯/২৮: মার্ক ২/২৫-২৬, ১১/২৩, ১৬/১৭-১৮: লূক ১৮/২৯-৩০, যোহন ৩/১৩), মদ পান করে মাতাল হতেন (লূক ৭/৩৪-৫০, যোহন ১৩/৪-৫
  • 117
    লূক ৭/৩৪-৫০, ৮/১-৩, যোহন ১১/১-৫
  • 118
    মথি ১২/৪৬-৫০; মার্ক ৩/৩১-৩৫; লূক ৮/১৯-২১, যোহন ২/৪, ১৯/২৬
  • 119
    মথি ২৬/৩৬-৪৬, ২৭/৩৮-৫১; লূক ২২/৪১-৪৬, মার্ক ১৫/২৭-৩৮
  • 120
    গালাতীয় ১০-১৩

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না।