As-Sunnah Trust

প্রশ্নোত্তর

ক্যাটাগরি

প্রশ্নোত্তর 746

প্রশ্ন

আসাালামু আলাইকুম। যদি স্ত্রীর সহবাস ছাড়া রোযা খাকা অবস্তায় বীর্যপাত হয় সেইটা যদি ইচ্ছা কৃত ভাবে হয় তাহলে কি রোযার কোন ক্ষতি হয়? প্রমাণ সহ বলবেন দয়া করে।

উত্তর

ওয়া আলাইকুমুস সালাম। প্রথমে আপনাকে বলি স্ত্রী সহবাস বাদে যে কোন ভাবে ইচ্ছাকৃত বীর্জ বের করা সব সময় হারাম। সুতরাং এর থেকে বিরত থাকতে হবে। যদি কেউ রোজা রেখে ইচ্ছাকৃত এমন করে তাহলে তার রোজা ভেঙ্গে যাবে। কাজা ও কাফফারা দুইটাই ওয়াজিব হবে। স্ত্রী সহবাস আর ইচ্ছাকৃত বের করার একই হুকুম। নিচের হাদীসটি দেখনু: هُرَيْرَةَ رَضِيَ اللهُ عَنْهُ، قَالَ: قَالَ رَسُولُ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ: كُلُّ عَمَلِ ابْنِ آدَمَ يُضَاعَفُ، الْحَسَنَةُ عَشْرُ أَمْثَالِهَا إِلَى سَبْعمِائَة ضِعْفٍ، قَالَ اللهُ عَزَّ وَجَلَّ: إِلَّا الصَّوْمَ، فَإِنَّهُ لِي وَأَنَا أَجْزِي بِهِ، يَدَعُ شَهْوَتَهُ وَطَعَامَهُ مِنْ أَجْلِي অর্থ: আবু হুরায়রা রা. বলেন, রাসূলুল্লাহ সা. বলেন, মানুষের প্রতিটি আমলের সওয়াব ১০ থেকে ৭০০গুন বৃদ্ধি করা হয়। আল্লাহ তায়ালা বলেন, তবে রেজা ভিন্ন, কেননা তা আমার জন্য আর আমি তার প্রতিদান দেব, রেজাদার আমার জ্ন্যই খাবার ও শাহওয়াতকে ( যৌন উত্তেজিত হয়ে সহবাস বা এ জাতীয় কিছু করা ) বর্জন করেছে। সহীহ মুসলিম হাদীস নং ১১৫১। আর ইচ্ছাকৃত বীর্জপাত শাহওয়াত বর্জন নয় । সুতরাং তার রোজা ভঙ্গ হয়ে যাবে। কাজা ও কাফফারা্ উভয়টিই ওয়াজিব হবে। আরেকটি কথা বলি, যেখানে দলীল দরকার আমরা সেখানে দলীল দিই। তবে যেখানে প্রয়োজন নেই সেখানে দেই না। এটা এমন একটি বিষয় যেখানে দলীলের দরকার নেই। আপনি বলেছেন তাই দিলাম।