As-Sunnah Trust

প্রশ্নোত্তর

ক্যাটাগরি

প্রশ্নোত্তর 6325

প্রশ্ন

আমার প্রশ্ন হলো কুরআনে রাতে ইফতার করতে বলা হয়েছে, মুসনাদে আহমদ ও মুয়াত্তা মালিক হাদিস আছে যখন একবারে অন্ধকার হয়ে যেত তখন ইফতার করত। কিন্তুু বুখারীর, মুসলিম তিরমিজি হাদিসে রাসুল সূর্য ডুবে গেলে ইফতার করতে বলা হয়েছে হঠাৎ এমন পরিবর্তন কেন করা হয়েছে।আমাদের মহল্লার ইমাম সাহেব বলেছেন ইহুদিদের থেকে যখন দেখলেন ইহুদিদের বিপরীত করার জন্য পরিবর্তন করেছেন। প্রশ্ন যিনি কুরআন কে নিজের জীবনের মডেল বানিয়েছেন যাকে জীবন্ত কুরআন বলা হয়েছে তিনি কুরআনের বিপরীত আমল করবেন এটা কিভাবে হয়? ইহুদিরা যদি সঠিক কাজ করে তাহলে বিরোধিতা করার কোন প্রয়োজনীয়তা আছে কি?

উত্তর

না, কোন পরিবর্তন করা হয় নি। কুরআনে রাত বলতে সূর্য ডুবা বোঝানো হয়েছে। রাসূলুলুল্লাহ সা. কুরআন যেভাবে আমল করেছেন সেভাবে বুঝতে হবে। তিনি সূর্য অস্ত যাওয়ার পরপরই ইফতার করেছেন প্রথম থেকেই। সুতরাং কুরআন নিজের মস্তিক্ক দ্বারা ব্যাখ্যা না করে রাসূল সা. এর আমল দ্বারা ব্যাখ্যা করতে হবে। মুসনাদে আহমদ ও মুয়াত্তা মালিক কিতাবের হাদীসগুলো উল্লেখ করলে সে বিষয়ে কথা বলতে পারতাম।

ইহুদীরা সঠিক কাজ করছে কি করছে না, সেটা রাসূলের কাজ দ্বারা বুঝতে হবে। যদি রাসূলুল্লাহ সা. বিরেোধীতা না করেন তাহলে বুঝতে হবে সঠিক কাজ। যদি বিরোধীতা করেন তাহলে বুঝতে হবে কাজটি সঠিক নয়।

সূর্য অস্ত যাওয়ার পরপরই ইফতার করতে হবে এই বিষয়ে মুসলিম উম্মাহ একমত। নতুন করে কুরআন বুঝার নামে বিভ্রান্তিতে পতিত হওয়া যাবে না।