As-Sunnah Trust

প্রশ্নোত্তর

ক্যাটাগরি

প্রশ্নোত্তর 5832

প্রশ্ন

আসসালামু আলাইকুম শায়েখ, আমি কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্প এ চাকুরি করি আমার প্রশ্ন হচ্ছে:- ১) রোহিঙ্গা কি হিজরত এর উপর আছে? তারা কি মুসাফির? হলে তাদের সালাত কি মুসাফির এর মত হবে? ২) তাদের সাথে আমাদের আচরন কেমন হবে? ৩) উখিয়া অনেক মসজিদে এর ইমাম সাহেব জর্দ্দা দিয়ে পান খেয়ে থাকেন নিয়মিত সেক্ষত্রে তাদের পিছনে সালাত আদায় করেলে কি সালাত পরিপূণ হবে? যদি না হয় তাহলে আমি কি একা সালাত আদায় করবো? ৪) আমি যে মসজিদে সালাত আদায় করি সে মসজিদ এর নামে ইসলামি ব্যাংক account আছে এবং সেখানে টাকা জমা রাখে কমিটি,  এর জন্য কি সাধারন মুসুল্লিদের সালাতে ক্ষতি হবে?

উত্তর

ওয়া আলাইকুমুস সালাম। রোহিঙ্গারা মুসফির নয়। এক এলাকায় ১৫ দিনের বেশী থাকার ইচ্ছা করলে তখন আর মুসাফির নয়। রোহিঙ্গারা সে জন্য মুসাফির নয়, তারা স্থানীয় মানুষের মত তথা মুকিমের মত সালাত আদায় করবেন। রোহিঙ্গারা মুসলিম হওয়ার কারণে বিপদে পড়ে এদেশে এসেছে, সুতরাং তাদের সাথে আমাদের কোমল আচরণ করতে হবে। শরয়ীভাবে হিজরতের উপর আছে, এমনটি না বলা গেলেও তারা তো দেশে ফিরে যেতে চায়, কিন্তু সেই সুযোগ তাদের আসছে না, এটা তো বাস্তব।

৩। না, একা সালাত আদায় করতে পারবেন না। ভালো ইমাম না পাওয়া গেলে এইসব ইমামের পিছনেই সালাত আদায় করতে হবে। যদি ভালো ইমামের পিছনে সালাত আদায়ের সুযোগ পান তাহলে সেই মসজিদে যাবেন।

৪। মসজিদের টাকা রাখার জন্য ব্যাংক থেকে নিরাপদ জায়গা দেশে আছে বলে মনে হয় না। সুতরাং ব্যাংকে টাকা রাখলে সালাতের কোন সমস্যা নেই।