As-Sunnah Trust

প্রশ্নোত্তর

ক্যাটাগরি

প্রশ্নোত্তর 5442

প্রশ্ন

আস-সালামু আলাইকুম হুজুর, আমি একজন রক্ষিতা। আমি খুব বড় পাপাচারে লিপ্ত আছি দয়া করে আমাকে কোরআন হাদীসের আলোকে সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করুন। একজন বিবাহিত লোকের সাথে আমার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে, আমার পরিবারের লোকজন জানার পর তারা আমাকে খুব মারধর করে, আমি রাগ করে সেই লোকটার কাছে চলে আসছি। সে বলেছিল আমাকে বিয়ে করবে কিন্তু প্রায় এক বছর হল সে বিভিন্ন অজুহাতে আমাকে বিয়ে করতে চাচ্ছে না। এখন তার অভিমত সে তার নিজের খরচে আমাকে অন্যত্র বিয়ে দিবে কিন্তু আমাকে সে বিয়ে করবে না। এদিকে আমার পরিবারের সবাইকে জানিয়েছি আমার বিয়ে হয়ে গেছে। আমার পরিবারে আমার অসুস্থ মা ছাড়া আর কেউ নেই। আমার পরিবারে আমাকে সাহায্য করার মত কেউ নেই বাবা মৃৃত। হুজুর আমি তার সাথেই জীবন কাটাতে চাই কারণ আমি দ্বিতীয় কাউকে আমার ইজ্জত দেখাতে চাই না। আমি কি করব এমন অবস্থায়? আমি তাকে হালাল উপায়ে পেতে চাই কিন্তু সে তো বিয়ে করতে চাচ্ছে না। আমার প্রতি এমন অবিচার করার শাস্তি কি রকম হতে পারে কোরআন হাদীসের আলোকে জানাবেন প্লিজ, দয়া করে আমাকে একটা সঠিক সমাধান দিন। আমি কি করলে তাকে বিয়ে করতে পারব?

উত্তর

ওয়া আলাইকুমুস সালাম। আপনার এখন প্রথম কাজ হলে এখনই সেই লোকের কাছ থেকে নিজের বাড়িতে আপনার মায়ের কাছে চলে আসা। এবং নিজেকে পাপ থেকে সম্পূর্ণরূপে বিরত রাখা। তারপর আপনার পরিবার ও আপজনদের কাছে নিজের ভুল স্বীকার করে কিভাবে সামনের জীবন সুন্দর করা যায় সে জন্য তাদের পরামর্শ অনুস্বরণ করা। তৃতীয়ত সে যদি আপনাকে বিয়ে না করতে চায় তাহলে তাকে হালাল উপায়ে পাওয়ার কোন ব্যবস্থা নেই। আর তার সাথে যদি কোনভাবে বিয়ে হয়ও তবে অশান্তি হবে এটা নিশ্চিত করে বলা যায়। আর আপনার এই পরিস্থিতির জন্য তার চেয়ে আপনি কম অপরাধী নন। পরিবারের মানুষ আপনাকে চুড়ান্ত সাবধান করার পরও আপনি সাবধান হন নি। কুরআন হাদীসের আলোকে অবিবাহিত ব্যভিচারী পুরুষ মহিলার শাস্তি হলো ১০০ বেত্রাঘাত, আর বিবাহিত হলে প্রকাশ্যে পাথর মেরে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া। তবে শাস্তি দিবে সরকারী আদালত।