As-Sunnah Trust

প্রশ্নোত্তর

ক্যাটাগরি

প্রশ্নোত্তর 5404

প্রশ্ন

আস সালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ আমার আব্বু 12 বছর ধরে সাংসারিক জীবন থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে দেওলিয়ার মতো হয়ে গেছে। তিনি নিজেকে খুব বড় পীর মনে করেন। তিনি দাবি করেন যে, তার কাছে বিভিন্ন পীর বুযুর্গের আত্মা আসে। এবং বলেন যে এই জগতের সবাই মরা, একমাত্র তিনিই জীবিত। সালাত একদম পড়েন না এবং পড়ার প্রয়োজনীয়তা অনুভবও করেন না। কিন্তু আমাদের সালাত আদায়ে বাধা দেন না। তাকে সালাত পড়ার কথা বললে তিনি বলেন – তিনি আল্লাহর দিদার পেয়ে গেছেন, সুতরাং সালাত পড়া আর না পড়া তার জন্য এখন এক। তিনি আল্লাহর সাথে বিভিন্ন পীর কে ডাকেন। একটা কথা আছে (গাওছে পাকের নাম জপিলে আল্লাহ্ পাওয়া যায়) এই সব কথা তিনি আমাদের বলেন এবং আমাদের তার কথা মানতে বলেন। আমরা না মানলে বিভিন্ন কটু কথা বলেন। একটা বই কে তিনি কুরআনের মত সম্মান করেন। ওই বই নিয়ে তিনি ঘুমায়। সব সময় হাতের কাছে রাখে। বইটা আব্দুল কাদের জিলানী (রাহ)-র নামে কিছু ভন্ডামির কথা লেখা আছে। নাম আমার ঠিক মনে নেই। অনেক চেষ্টা করতেছি বুঝানোর জন্য। সুন্দর করে কথা বলে দেখেছি। আমার কোনো কথায় তিনি শুনেন না। আমি তাকে সুন্দরভাবে কিছু বলতে পারি না। তার মতের অমিল হলেই আমাকে গালি গালাজ করে। তার মতে তিনিই একমাত্র সঠিক। তিনি নেশা জাতীয় দ্রব্য পান করেন। আমি কোনোভাবেই বুঝাতে পারছি না। আল্লাহর কাছে দোয়া করছি। এ ছাড়া আমার আর কোনো পথ খোলা নেই। এই অবস্থায় আমার আব্বু যদি মারা যায় তাহলে তার জানাজা হবে? এবং তার এই কর্ম এবং বিশ্বাসের ফলে কি আমার আম্মুর সাথে তার বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে গেছে? এবং আমার কি করণীয় আছে? জানাবেন। জাযাকাল্লাহু খায়রান

উত্তর

ওয়া আলাইকুমুস সালাম। শায়েখ ড. আবুবকর জাকারিয়া মজুমদার হা. ফি. আপনার এই প্রশ্নের জবাবে বলেছেন, আপনার পিতা এখন আর মুসলিম নন সুতরাং তার জানাযা করা যাবে না, মুসলিমদের কবরস্থানে দাফন করা যাবে না। আপনার মায়ের সাথে তার বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে গেছে, এখনই তাদেরকে আলাদা হতে হবে।