আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর রাহি এর ছেলের মুখে বাবার মজার ঘটনা!

আপনার আব্বুর (আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর) সাথে দেশে বিদেশে বা চলাফেরায় একটা অনুভূতি যেটা আপনি এর আগে বলেন নাই বা আপনার বলা হলেও আমরা জানি না। এরকম একটা ফিলিং সিয়ার, আপনি যদি করতেন যেটা আপনাকে আনন্দ দিয়েছে অথবা একটা ভিন্ন মাত্রা যেটার মধ্যে আপনার ইচ্ছা আপনার মতো করে বলতে পারেন আমাদের দর্শকদের জন্য।

আমি সার্বিকভাবে যেটা বলতে পারব যেটা সবার উপকারে দিবেআব্বু সব সময় চেষ্টা করতেন, আমরা সবসময় ভালো মানুষ হই বা ভালোভাবে বেড়ে উঠি আমাদের তারবিয়াতের ব্যাপারে গুরুত্ব দিতেন। এবং সেই অনুযায়ী আমাদেরকে বিভিন্ন বই পড়তে উৎসাহিত করতেন। তারপরে অলস বিনোদনকে অপছন্দ করতেন। বিনোদনের তো বিভিন্ন মাধ্যম আছে। শরীর চর্চাকে পছন্দ করতেন। এবং আমাদেরকে বিভিন্ন জায়গায় বেড়াতে নিয়ে যেতেন। তবে এই যে, ব্যক্তিগত জীবনের সুন্দর বিষয়গুলো তো অনেক আনন্দের বিষয়। এগুলো সুন্দর স্মৃতির অন্তর্ভুক্ত রয়েছে/হয়েছে। আমাকেসহ আমার বোন যখন ছোট ছিল যখন পর্দা করার প্রয়োজন হয় নাই। সেই সময় ওয়াজ মাহফিলগুলোতে আমাদেরকে সাথে করে নিয়ে যেতেন। সাথে করে মাহফিলগুলোতে নিয়ে যাওয়া একটি অনেক বড় পাওয়া। এবং এটা আসলে বলে বুঝানো যাবে না। যে এটা কত আনন্দের বা কত শিক্ষণীয় একটা বিষয়। এবং ব্যক্তিগত যেকোন বিষয় যেমন করে বললে আমি বুঝবো। সেভাবে বুঝানোর চেষ্টা করতেন। আল্লাহ তাআলার ইচ্ছায় আমরা যেন ভালো মানুষ হই সেটা তিনি চেষ্টা করতেন।

মূল কথা আমি সার্বিকভাবে যেটা বলতে পারব যে, আব্বুর অন্যদের সাথে আচার-আচরণের ভিতর বিশেষ করে অধিনস্ত যারা আছেন। যিনি হয়ত ঘরের মানুষ তিনি হয়ত ঘরের কোনো কাজ করে দেন বা বাসার ড্রাইভারসহ অন্যান্য যারা আছেন। এদের সাথে তিনি সবসময় ভালো ব্যবহার করতেন। ভালো ব্যবহারের অর্থ যে, মানে অপ্রয়োজনীয় বকাঝকা করা বা তাদের সাথে একটা অসম্মানজনক আচরণ করা এগুলো তিনি সবসময় এড়িয়ে চলতেন। বা এ বিষয়গুলো তিনি মেইনটেইন করার চেষ্টা করতেন।

আমি সার্বিকভাবে যেটা বলতে পারব যেটা আমার সাথে ইনভল্ব না। কিন্তু বিষয়টা হয়ত অনেকের কাছে মজা লাগবে। যে, একবার এক ড্রাইভার ভাইকে নিয়ে গিয়েছিলেন মাহফিলে। তো আসার সময় ঐ ড্রাইভার ভাই ক্লান্ত হয়ে ঘুমিয়ে পড়েছেন। তো আসার সময় আব্বু উনাকে বললেন যে, তুমি পাশে যেয়ে বস। পাশে যেয়ে আব্বু ড্রাইভ করে গাড়ী চালিয়ে বাসায় চলে এসেছেন। একদম ঘরে এসেও দেখছেন ড্রাইভার সাহেব ঘুমাচ্ছেন। এরপরও ড্রাইভার সাহেবকে কোনো কটু কথা বলেন নাই যে, তোমাকে নিয়ে আসলাম আমার গাড়ী চালানোর জন্য কিন্তু তোমাকে বয়ে নিয়ে আসতে হল বা এটা শুধু একটা উদাহরণ দেওয়ার জন্য যে, আমাদের অনুকরণীয় ব্যক্তিগত আচরণে অনুকরণীয় কি থাকতে পারে। এটার জন্য এটা বললাম আর কি

চেয়ারম্যানের বাণী, Dr. Abdullah Jahangir

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *